1. admin@agrajatrabd.news : admin :
বিজ্ঞপ্তিঃ-
জেলা-উপজেলায় সাংবাদিক নিয়োগ চলছে যোগাযোগ ০১৩ ০৯ ৩২ ৩২ ৮১
শিরোনাম
বাসাইল উপজেলার বাথুলী সাদী হাট-বাজার প্রকল্পে চারতলা ভিত ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন উদ্বোধন করেন দামুড়হুদা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন সভাপতি এম,নুরুন্নবী সাধারণ সম্পাদক বখতিয়ার হোসেন বকুল ঝিনাইদহে ফেন্সিডিল মাদক ব্যবসায়ী আটক দামুড়হুদা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন সভাপতি এম,নুরুন্নবী সাধারণ সম্পাদক বখতিয়ার হোসেন বকুল গাজীপুরে শেখ ফজলুল হক মনির ৮১তম জন্মদিন পালিত ৪ ডিসেম্বর ১৯৭১; যুদ্ধে পর্যুদস্ত পাকিস্তানের জাতিসংঘে দৌড়ঝাঁপ দামুড়হুদা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন সভাপতি এম,নুরুন্নবী সাধারণ সম্পাদক বখতিয়ার হোসেন বকুল চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গায় নিখোঁজের প্রায় দুই মাস পর এক যুবকের গলিত লাশ উদ্ধার চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গায় নিখোঁজের প্রায় দুই মাস পর এক যুবকের গলিত লাশ উদ্ধার চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গায় ছেলের বউয়ের হাতে শাশুড়ি হত্যার অভিযোগ

শরীয়তপুরে ডাক্তারের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

  • Update Time : বুধবার, ২২ জুলাই, ২০২০
  • ৯০ বার পড়া হয়েছে

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ

ডাক্তার রোগীকে না দেখেই কতগুলো টেস্ট করতে দেয় রোগীকে দালালের কথায় আবার অন্য ডাক্তার দেখাতে হাসপাতালের দোতলায় নিচতলায় উঠানামা করানো হয় এ কারণে আরো বেশি অসুস্থ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন রোগী। এমনি অভিযোগ করেন রোগীর ছেলে হিরন মায়ের মৃত্যু হলে ২১ জুলাই মঙ্গলবার দুপুরে এঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার রাতে মোবাইল ফোনে সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন শরীয়তপুর জেলা ও দায়রা জজ কোর্টের পেশকার আমিনুল ইসলাম হিরণ।

মৃত নারী জেলার গোসাইরহাট উপজেলার নাগেরপাড়া গ্রামের আজগর আলী মাস্টারের স্ত্রী নাজনীন নাহার (৫৫)।

রোগীর অবস্থা সিরিয়াস দেখে ২১ জুলাই দুপুর ১১ টার দিকে তার আত্বীয় স্বজনরা হাসপাতালের নিয়ে আসেন বড় ডাক্তার আরএমও সুমন কুমার পোদ্দারের কাছে নিয়ে যাওয়ার পরে সে জরুরী বিভাগে পাঠিয়ে দেন।

জরুরি বিভাগের একটা লোক ডাক্তারের কথা বলে হাসপাতালের ২য় তলায় নিয়ে যায়। সেখানে একজন ডাক্তার আমার মাকে দূর থেকে দেখেই কয়েকটা টেস্ট দিয়ে দেন। আমার মাকে নিয়ে উপর তলা, নিচ তলা ঘুরাঘুরি করাতে মা ক্লান্ত হয়ে হাসপাতালের ফ্লোরে বসে পরেন। তারপর জরুরি বিভাগের ডাক্তার নাসরিন আমার মাকে দেখে একটা ইসিজি করে আনতে বলেন। আমি বাহির থেকে ইসিজি করে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আমার মাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। আমার মায়ের মৃত্যু ডাক্তারের অবহেলার কারণে হয়েছে।

রোগীর সাথে থাকা প্রত্যক্ষদর্শীরাও বলেন, হাসপাতালের ডাক্তারের অবহেলার কারণেই রোগীটির মৃত্যু হয় বলে জানান।

এ বিষয়ে সদর হাসপাতালে আরএমও ডা. সুমন কুমার পোদ্দার বলেন, আমার কাছে রোগীকে ট্রলিতে করে নিয়ে এসেছিলো। রোগীর অবস্থা খারাপ দেখে আমি জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসকের কাছে যেতে বলি।

এছাড়া তিনি জানান, মৃত্যুর বিষয়ে চিকিৎসায় অবহেলা হলে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মুনীর আহমেদ খান বলেন, রোগীর স্বজনদের কথায় জানতে পারলাম তারা রোগীকে হাসপাতালের আরএমও ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দারের কাছে দেখাতে নিয়েছিলেন। তিনি না দেখে জরুরি বিভাগের ডাক্তারের কাছে পাঠিয়ে দেয়। জরুরি বিভাগে কি হয়েছিলো এ বিষয়ে ডাক্তার সুমন কুমার পোদ্দার ভালো বলতে পারবে।

এবিষয়ে জেলা সিভিল সার্জন এস.এম. আব্দুল্লাহ আল মুরাদ বলেন, আমি এব্যাপারে জানি না। বিষয়টি ভালো করে জেনে ব্যবস্থা নিবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
৪৭৩,৯৯১
সুস্থ
৩৯০,৯৫১
মৃত্যু
৬,৭৭২
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
২,২৫২
সুস্থ
২,৫৭২
মৃত্যু
২৪
স্পন্সর: একতা হোস্ট
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় ইন্টেল ওয়েব